Death is a common lot of all – মৃত্যু সবার কাছেই ভবিতব্য!

তোমার দুঃখ নিয়ে তুমি বেশি কাতর হয়োনা, মৃত্যু সবার কাছেই ভবিতব্য!

একবার এক গরীব লোকের সন্তান অসুখে আক্রান্ত হয়ে মারা গেল। লোকটি অঝোর নয়নে কাঁদতে লাগলো। ঠিক সেই মূহুর্তে সে লোকজনের কাছে শুনল গৌতম বুদ্ধের কথা। তিনি নাকি বিরাট সন্ন্যাসী মানুষ এবং তিনি মৃত মানুষকেও বাঁচিয়ে তুলতে পারেন। এই খবর শুনে সেই ব্যাক্তি তাঁর মৃত সন্তানকে নিয়ে গৌতম বুদ্ধের কাছে ছুটে গেলেন।

মৃত সন্তানকে সেই মহান ঋষির পাশে শুইয়ে দিয়ে কাতর ভাবে সন্তানকে বাঁচিয়ে তোলার জন্য অনুরোধ করতে লাগলেন। গরীব ব্যাক্তির সেই অবস্থা দেখে গৌতম বুদ্ধের খুব কষ্ট লাগল। তখন উনি সেই ব্যক্তিকে বললেন যে একটা অসুধ আছে যেটা এনে দিতে পারলে উনি তার সন্তানকে জীবিত করে দিতে পারবেন।

কথাটা শুনে তৎক্ষণাৎ গরীব ব্যক্তিটি জিজ্ঞাসা করল “কি ওষুধ প্রভু?”

গৌতম বুদ্ধ বললেন “যে পরিবারের কেউ কোনোদিনও মারা যায়নি সেই পরিবার থেকে একমুঠো সরষে আমায় এনে দিতে হবে তবেই আমি তোমার সন্তানকে বাঁচিয়ে তুলতে পারবো।”

“কোনও অসুবিধা হবে না, আমি এখনই এনে দিচ্ছি” – বলেই লোকটি তার মৃত সন্তানকে সেখানেই শুইয়ে রেখে তৎক্ষণাৎ চলে গেলেন।

তাড়াতাড়ি করে সে সবার বাড়ি বাড়ি ঘুরতে লাগলো সরষে দানার জন্য। কিন্তু সব বাড়িতেই খোঁজ নিতে গিয়ে দেখল প্রত্যেকটা পরিবারেরই কেউ না কেউ কোনও একসময় মারা গেছে।

মনের দুঃখে সে ফিরে এসে বুদ্ধকে জানালো উনি যে সরষে দানার কথা বলেছিলেন সেটা পাওয়া যায়নি।

গৌতম বুদ্ধ তখন লোকটিকে সমবেদনার সাথে বলল “বৎস, তোমার দুঃখ নিয়ে তুমি বেশি কাতর হয়োনা, মৃত্যু সবার কাছেই ভবিতব্য!”

–ছোট বেলার গল্পবই থেকে পাওয়া